Tími  2 dagar 6 klukkustundir 40 mínútur

Hnit 6101

Uploaded 19. júlí 2018

Recorded október 2016

  • Rating

     
  • Information

     
  • Easy to follow

     
  • Scenery

     
-
-
699 m
9 m
0
15
31
61,0 km

Skoðað 352sinnum, niðurhalað 13 sinni

nálægt Belāichari, Chittagong (Bangladesh)

বিলাইছড়ির পাহাড়

বাংলাদেশের পার্বত্য অঞ্চলের বিভিন্ন অংশে উত্তর হতে দক্ষিন বরাবর অবস্থান নিয়ে আছে একাধিক পাহাড়সারি।এইসব পাহাড় সারিগুলো আমাদের পার্বত্যচট্টগ্রামের প্রশাসনিক অঞ্চল বিভক্তিকরনে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা বহন করে।একেকটি পাহাড়সারি উচ্চতা আকৃতি,সৌন্দর্য,গঠনের দিক দিয়ে যেমন ভিন্ন তেমনি সেসব পাহাড়ে বসবাসকারীরা গোত্র,ধর্ম,জীবন,জীবিকা নির্বাহপদ্ধতি,ঐতিহ্যগত দিক দিয়ে এঁকে অন্যের চেয়ে বেশ বৈচিত্র্যপূর্ণ।

রাঙ্গামাটি জেলার বিলাইছড়ি উপজেলা সদরের পূর্বদিকে তেমনি দেয়ালের মতো দাঁড়িয়ে আছে বিলাইছড়ি পাহাড়সারি বা রেঞ্জ।কিছু নথিপত্র ও তথ্য অনুযায়ী এই পাহাড়সারিকে সাবাটং-গবমুড়া-বিলাইছড়ি রিজ নামেও উল্লেখ করা হয়েছে।কাপ্তাই হতে পানিপথে বোটে বিলাইছড়ি উপজেলা সদর আসার সময় পূর্বদিগন্তে এই পাহাড়সারি সহজেই চোখে পড়ে।বিলাইছড়ি উপজেলায় ফারুয়ার দক্ষিনে আলাদা আরও একটি পাহাড়ি রেঞ্জ রয়েছে যা সাইচাল বা রেংতলাং নামে পরিচিত।উচ্চতা ও গঠন-আকৃতিতে এই পাহাড়গুলো আরও উঁচু ও বড়।বিলাইছড়ি রেঞ্জের পূর্বদিকে শুভলং অববাহিকার অবস্থান। যা জুরাইছড়ি উপজেলার অন্তর্গত।শুভলং খালের উৎপত্তি এই বিলাইছড়ি রেঞ্জের দক্ষিনে,পূর্ব ঢাল হতেই।এই খালের নামেই নামকরন হয়েছে শুভলং বাজার ও ব্যাপক পরিচিত শুভলং ঝর্নার। রেঞ্জের পশ্চিম দিকে রানখিয়াং অববাহিকা।রানখিয়াং নদী,যা বর্ষাকালে ফুলে ফেঁপে বিশাল নদীর আকৃতি ধারন করে।এই পাহাড়সারির উঁচুস্থান থেকে স্পষ্ট অবলোকন করা যায় কাপ্তাই লেক,এমনকি রাঙামাটি শহরও।এই পাহাড়ে অবস্থিত অধিকাংশ পাড়াই চাকমা ও তঞ্চঙ্গা গোত্রের। বিলাইছড়ি পাহাড়ি রেঞ্জের অন্যতম তিনটি পাহাড় হলো বাঙ্গালকাঁটা মন,পরীহোলা মন ও বানাটাইঙ্গা চুগ।এগুলো পাহাড় তিনটির স্থানীয় নাম।২০১৬ সালে বিডি এক্সপ্লোরার দ্বারা শরৎকালীন অভিযানে বিলাইছড়ি পাহাড়ি রিজ ঘুরে বেড়ানোর পাশাপাশি উল্লেখযোগ্য পাহাড়গুলোর উচ্চতা মাপার কাজ সম্পন্ন করা হয়।এই সময়ে দল বিলাইছড়ি বাজার হতে অভিযান শুরু করে বিলাইছড়ি রেঞ্জের উপর কার্যক্রম শেষে শিলছড়ি বাজারে নেমে শুভলং খাল হয়ে জুরাইছড়ি সদর হতে নৌকা পথে রাঙামাটি শহরে এসে অভিযান শেষ করে।

বিলাইছড়ি বাজারের নিকটেই সদ্য জনপ্রিয় হওয়া ঝর্নাগুলো যাওয়ার পথে নৌকা হতে বাজারের পিছনে যে উঁচু পাহাড়টি দেখা যায় তার নাম হলো পরীহোলা মন।কথিত আছে অনেক আগে এই পাহাড়ের একটি মাঠে পরীরা আকাশ হতে নামতো বলে পাহাড়ের এই নামকরন। পাহাড়ের সর্বোচ্চ উচ্চতা ১,৮৪০ (+/-)ফিট।এই পাহাড়ের দক্ষিনে বিলাইছড়ি মন পাড়ার নিচ থেকেই উৎপত্তি বিলাইছড়ি ছড়ার।এই ছড়া বিলাইছড়ি বাজারের পাশ দিয়ে রানখিয়াং খালে পতিত হয়।জানা যায় এই ছড়ার নামেই কিনা বিলাইছড়ি বাজার বা উপজেলার নামকরন। এই ছড়ায় বেশ কিছু ঝর্না রয়েছে।পরীহোলা মন পাহাড়ের নিচেই রয়েছে মুপ্পোছড়া ও নকাটা ছড়া ঝর্না।২০১৫ সালের বর্ষাকালীন বিডি এক্সপ্লোরারের একটি দল এই সকল ঝর্নায় অভিযান চালায়।পাহাড়ের উপরে রয়েছে পরিহোলা মন পাড়া।নিচে হাজাছড়া পাড়া,নকাটাছড়া পাড়া ও বাঙ্গালকাঁটা পাড়া। সবই চাকমা পাড়া।

বিডি এক্সপ্লোরার দলের জিপিএস রিডিং অনুযায়ী বিলাইছড়ি রেঞ্জের সর্বোচ্চ পাহাড়চূড়া বাঙ্গালকাঁটা মন।সর্বোচ্চ উচ্চতা ১,৯৩৫ (+/-)ফিট।বাঙ্গালকাঁটা ছড়ার উৎপত্তি এই পাহাড় থেকেই বলে এই পাহাড়ের স্থানীয় নামকরন বাঙ্গালকাঁটা মন। এই পাহাড়ে রয়েছে হৃদয় রঞ্জন কারবারি পাড়া ও বেগনাছড়ি পাড়া।এখানকার পাড়াগুলোর অবস্থানধরন অন্যান্য অঞ্চলের পাড়াগুলো থেকে ভিন্ন।জুমের সুবিধার্থে জুমের কাছেই ঘর বাঁধে একি পাড়ার একেক পরিবার।জুম চাষের স্থান পরিবর্তনের সাথে সাথে পরিবর্তন হয় তাদের বসবাসের ঘরের অবস্থানও।তাই পুরো পাহাড় জুড়েই বলা যায় একটা পাড়া।এই পাহাড়ের পশ্চিম ঢালেই রয়েছে হরিন হাট ও বেগনাছড়ি নামে দুটি সুন্দর ঝর্না।বাঙ্গালকাঁটা মনের উঁচু স্থান হতে অসাধারণ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য চোখে পড়ে।একদিকে দেখা যায় কাপ্তাই লেক অন্যদিকে দূরের ভারতের পাহাড়সারি।

এই অঞ্চলে ব্যাপক পরিচিত পাহাড় বানাটাইঙ্গা চুগ।অনেক দূর থেকে এই পাহাড় দেখা যায়।এর চূড়া থেকে দেখা যায় বরকল পাহাড় আর জুরাইছড়ি বাজার।এই পাহাড়ের চূড়ায় মিলিত হয়েছে রাঙামাটি সদর,বিলাইছড়ি ও জুরাইছড়ি উপজেলার সীমানা।এই পাহাড়ের দেহে বটতলি মন ও বারাবাইন্না পাড়ার অবস্থান।বানাটাইঙ্গা চুগ পাহাড়ের পূর্ব পাদদেশে শুভলং খালের পাড়েই শিলছড়ি বাজারের অবস্থান।ইউ এস টোপো ম্যাপ অনুসারে এই পাহাড়ের নাম ফুকমানি মাইন।উল্লেখ করা হয়েছে সতন্ত্র ও এই রেঞ্জের সর্বোচ্চ চূড়া হিসেবে।কিন্তু বিডি এক্সপ্লোরারের জিপিএস রিডিং অনুযায়ী (জারমিন ইট্রেক্স২০) এই পাহাড়ের সর্বোচ্চ উচ্চতা ১,৯০৫ (+/-)ফিট।যা কিনা বাঙ্গালকাঁটা মন থেকেও কম। অভিযানের ডাটা অনুযায়ী বাঙ্গালকাঁটা মন ও বানাটাইঙ্গা চুগ পাহাড়দ্বয়ের মাঝে রিজ বরাবর তেমন উচ্চতার পতন না ঘটায় এক্ষেত্রে বানাটাইঙ্গা চুগ পাহাড়ের চূড়াকে বাঙ্গালকাঁটা মন পাহাড়ের সাব পিক বলতে হয়।অর্থাৎ,বাঙ্গালকাঁটা মন সতন্ত্র ও বিলাইছড়ি রেঞ্জের সর্বোচ্চ চূড়া।তবে,পরবর্তীতে অন্যান্য অভিযাত্রী দল এইসব পাহাড়ে অভিযান চালিয়ে উচ্চতা মাপলে এই বিষয়টি আরও স্বচ্ছ হবে বলে আশা করা যায়।

এছাড়াও বিলাইছড়ি রেঞ্জে আরও রয়েছে জাদিচুগ,বিলাইছড়ি মন,ধুপসিল পাহাড় ও লতা পাহাড়।যেগুলোর কোনটাই সতন্ত্র চূড়া বিশিষ্ট কোন পাহাড় নয়।

** উপরিল্লিখিত কোন ডাটাই অফিসিয়াল নয়।

"Expedition: Above The Bayou"
। 2016 ।
BD Explorer.

3 comments

You can or this trail